আত্মবিশ্বাসী ক্রোয়েশিয়ার হুশিয়ারি

0
5

নিজেদেরকে ‘আন্ডারডগ’ হিসেবে উল্লেখ করে কাতার বিশ্বকাপে প্রতিপক্ষের প্রতি সতর্ক উচ্চারণ করে ক্রোয়েশিয়া বলেছে, আবারো টুর্নামেন্টে ফাইনালে উঠতে যা যা দরকার তা তাদের আছে। নিজ দলের অনেক উন্নতিও দেখছে কোয়েশিয়া।

অধিনায়ক লুকা মড্রিচের নেতৃত্বে চার বছর আগে রাশিয়ায় অনুষ্ঠিত বিশ^কাপের ফাইনাল খেলেছে ক্রোয়েশিয়া। ফাইনালে ফ্রান্সের কাছে ৪-২ গোলে হেরে যায় তারা। কাতার বিশ^কাপে বয়স্ক এই স্কোয়াডটি নিয়ে খুব কম লোকই আশাবাদী। আর এটিকেই ইতিবাচক হিসেবে দেখছে বর্তমান রানার্স আপ দলটি।

স্ট্রাইকার ব্রুনো পেটকোভিচ বলেন,‘ আমরা যেমন ভবিষ্যদ্বানী নিয়ে চিন্তুা করিনা, তেমনি বাড়তি কোন চাপও নিতে চাই না। আমরা সেগুলো পড়িও না শুনিও না। আমাদের শুধু ধাপে ধাপে এগুতে হবে। আমাদের নিজস্ব একটি লক্ষ্য আছে এবং সেদিকেই আমাদের মনোযোগ। দিন শেষে দেখতে চাই আমরা সঠিক ছিলাম, নাকি ভবিষ্যদ্বানী।

সতীর্থ ফরোয়ার্ড মার্কো লিভায়ার মন্তব্যও অনেকটা একই। তিনি বলেন,‘ আমি মনে করি রাশিয়ার পুনরাবৃত্তি ঘটানোর মতো ভালো সুযোগ আমাদের আছে।’

এফ’ গ্রুপ থেকে বুধবার মরক্কোর বিপক্ষে ম্যাচ দিয়ে বিশ^কাপ মিশন শুরু করবে গত আসরের রানার্স আপরা। গ্রুপের বাকী দুই প্রতিপক্ষ কানাডা ও বেলজিয়াম। এবারের বিশ^কাপে সম্ভাবনাময় দল হিসেবে বিবেচিত হচ্ছে ব্রাজিল, আর্জেন্টিনা, স্পেন, ইংল্যান্ড, জার্মানি ও বর্তমান চ্যাম্পিয়ন ফ্রান্স।

তবে ক্রোয়েশিয়া এখনো নির্ভর করে আছে রিয়াল মাদ্রিদের প্লে মেকার মড্রিচ ও অভিজ্ঞ ইভান পেরিসিস এর উপর। তারপরও অনেকেরই ধারনা কাতারের চ্যালেঞ্জ নেয়ার মতো পর্যাপ্ত সামর্থ্যের ঘাটতি রয়েছে তাদের।

দেশের হয়ে ২৩ ম্যাচে অংশ নিয়ে ৬ গোল করা ডায়নামো জাগ্রেবের স্ট্রাইকার পেটকোভিচ বলেন,‘ আমার ক্যারিয়ারে এটি বুঝতে পেরেছি যে কখনো গণমাধ্যমের পছন্দে আমি ছিলাম না। তাই এটি নিয়ে আমার কোন মাথা ব্যাথাও নেই। আমি নিজের উন্নতির বিষয়ে মনোযোগী। যাতে দলের সাফল্যে সাহায্য করা যায়। ’

২৮ বছর বয়সি এই তারকা আরো বলেন,‘ হয়তো সবার আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ার বা স্বীকৃতি নেই, কিন্তু আমাদের আক্রমনভাগ দুর্দান্ত বলে আমি মনে করি। আমাদের খেলা মানসম্পন্ন এবং ফরোয়ার্ডদের নিয়ে চিন্তিত হবার কোন কারণ আছে বলে আমি মনে করি না।’

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে