দীর্ঘ বিরতির পর মঞ্চে প্রাচ্যনাটের ‘বনমানুষ’

0
5
ছবি: বন মানুষ নাটকের দৃশ্য।

দীর্ঘ বিরতির পর মঞ্চায়ন হতে যাচ্ছে প্রাচ্যনাটের নাটক ‘বনমানুষ’। শিল্পকলা একাডেমির জাতীয় নাট্যশালার প্রধান মিলনায়তনে ৩১ জুলাই সন্ধ্যা ৭টায় মঞ্চায়ন হবে দলের ২৭তম এ প্রযোজনা।

আইরিশ-আমেরিকান নাট্যকার ইউজিন ও’নিলের নাটক ‘দ্য হেয়ারি এপ’ এর বঙ্গানুবাদ ‘বনমানুষ’।

ছবি: বন মানুষ নাটকের দৃশ্য।

নাটকটি নির্দেশনা দিয়েছেন বাকার বকুল। মূল নাটক ‘দ্য হেয়ারি এপ’ এ পুঁজিবাদকে কটাক্ষ করেছিলেন ও’নিল। ‘বনমানুষ’ নাটকে পুঁজিবাদের পাশাপাশি সা¤্র্রাজ্যবাদ ও নব্য-উপনিবেশিকতার ইঙ্গিতও দেয়া হয়েছে বলে জানালেন পরিচালক।

নিউইয়র্ক থেকে যাত্রা করা একটি জাহাজের খালাসিদের নিয়েই নাটকটির গল্প এগোয়। গনগনে চুল্লিতে কয়লা ঢেলে যারা জাহাজকে সচল রাখে তাদের জীবনের পাওয়া-না পাওয়া আর শ্রেণীবৈষ্যমের জঘন্য রূপ উঠে এসেছে এই নাটকে। বাকার বকুল বলেন, জাতিগত পর্যায় থেকে পরিবার কিংবা ব্যক্তিগত পর্যায়ে ঢুকে পড়েছে পুঁজিবাদ।

পুঁজিবাদ এখন বিশ্বায়নের নামে নতুন এক ধাপ্পা দিচ্ছে বিশ্ববাসীকে। এটা আসলে উপনিবেশিকতার সূক্ষ্ম কৌশল। ‘বনমানুষ’ নাটকে এই অপকৌশলের বিরুদ্ধে প্রতিবাদী হয়ে উঠেছে জনতা। নাটকের কেন্দ্রীয় চরিত্র জাহাজের খালাসি ইয়াংক। কালি মাখা অবস্থায় তাকে বনমানুষের মতো মনে হয়। জাহাজ মালিকের মেয়ে মিলড্রেড ডগলাস জাহাজের খোলে ভয়ঙ্কর দর্শন ইয়াংককে দেখে চিৎকার করে ওঠে।

ইয়াংক যখন বুঝতে পারে তাকে দেখেই ভয় পেয়েছে ডগলাস, তখন পুঁজিপতিদের প্রতি তীব্র এক ঘৃণা জন্ম নেয় তারমধ্যে। পুঁজিপতিদের সা¤্রাজ্যে হানা দেয়ার স্বপ্ন দেখে সে। জাহাজ বন্দরে ভিড়লে সহকর্মীকে নিয়ে শহরে ঘুরতে বের হয় ইয়াংক। শহরের জৌলুসও উচ্চবিত্তের জীবনধারা তাকে ক্ষিপ্ত করে তোলে। সে নানা উদ্ভট কর্মকাণ্ড শুরু করে দেয়। এক পর্যায়ে বিরক্ত শহরবাসী তাকে জেলে দেয়। কিন্তু জেল থেকে পালিয়ে যায় ইয়াংক। সে চলে যায় চিড়িয়াখানায়। বনমানুষের খাঁচার কাছে গিয়ে জন্তুটাকে ডাক দেয়। জন্তুটার সঙ্গে হাত মেলাতে যায় সে। শেষে বনমানুষের আক্রমণে নিহত হয় সে।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে