নাগরপুর পাকুটিয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান বিরুদ্ধে টাকার বিনিময়ে বয়স্ক ভাতা অন্তর্ভুক্তির অভিযোগ

0
451
চেয়ারম্যান, মোঃ সিদ্দিকুর রহমান

টাঙ্গাইলের নাগরপুর উপজেলার, পাকুটিয়া ইউনিয়নে বয়স্ক ভাতার অন্তর্ভুক্তি হতে চেয়ারম্যানকে দিতে হয়েছে টাকা। ভাতার টাকা উত্তলোনের সময়ও গুনতে হয়েছে নগদ অর্থ। এমনটাই অভিযোগ উঠেছে টাঙ্গাইলের নাগরপুর উপজেলার, পাকুটিয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান সিদ্দিকুর রহমান এর বিরুদ্ধে।

ইউনিয়ন এর বিভিন্ন এলাকায় খোজ খবর নিয়ে, বিভিন্ন জনের কাছ থেকে শোনা যায়, বয়স্ক ভাতা পেতে নাম অন্তর্ভুক্ত করতে, বিএনপি সমর্থিত ধানের শীষ প্রতীকে বিজয়ী চেয়ারম্যান, মোঃ সিদ্দিকুর রহমান কারও কাছ থেকে নিয়েছে ৩০০০ টাকা আবার কারও কাছ থেকে নিয়েছে ১২০০ টাকা এবং ভাতার টাকা উত্তোলনের আগে, বই জমা নিয়ে ভাতা উত্তোলনের সময় নিয়েছে ২০০ করে টাকা।

গত ২০ মে, ইউনিয়ন এর বিভিন্ন এলাকার বয়স্ক, প্রতিবন্ধী ও বিধবা ভাতার টাকা উত্তোলনের জন্য আসা লোকজনের কাছ থেকে নগদ ২০০ করে টাকা নেয়া হয়। অনেকেই টাকা দিতে অস্বীকার করায় সৃষ্টি হয় কলহ। বিষয়টি ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মোঃ শামীম খান জানতে পেরে, উপজেলা নির্বাহী অফিসার সৈয়দ ফয়েজুল ইসলামকে অবগত করেন। সাথে সাথেই উপজেলা নির্বাহী অফিসার এসে চেয়ারম্যান মোঃ সিদ্দিকুর রহমানকে, অসহায় মানুষদের কাছ থেকে নেওয়া টাকাগুলো ফেরত দেয়ার জন্য নির্দেশ দেন। তবে সামান্য কিছু লোকের টাকা ফেরত দিলেও,অধিকাংশ অসহায় মানুষদের টাকা ফেরত দেয়নি। এবিষয়ে কথা বলার জন্য ইউনিয়ন পরিষদে গিয়ে চেয়ারম্যানকে পাওয়া যায়নি।

এলাকায় ঘুড়ে পাওয়া গেলো সেই চোকিদারকে (যার মাধ্যমে টাকা কালেকশন করা হয়েছে) তিনি বলেন, চেয়ারম্যানের নির্দেশেই টাকা নেওয়া হয়েছিলো, উপজেলা নির্বাহী অফিসার এর নির্দেশে টাকা ফেরত দেওয়া হয়েছে। ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মোঃ শামীম খান বলেন, ইউনিয়ন এর প্রায় ১২৫০ জন বয়স্ক,প্রতিবন্ধী ও বিধবা ভাতাভোগীদের কাছ থেকে ২০০ করে টাকা নিয়েছে চেয়ারম্যান। নাম অন্তর্ভুক্ত করতেও অনেকের কাছ থেকে নিয়েছে ৩০০০ করে টাকা।

বিষয়টি নিয়ে এলাকায় বিভিন্ন সমালোচনা চলছে। জেলা প্রশাসক বরাবর অভিযোগও করা হয়েছে। উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি এ্যাডভোকেট আজহারুল ইসলাম বলেন, বি এন পির ধানের শীষ প্রতিক নিয়ে নির্বাচিত চেয়ারম্যান সিদ্দিকুর রহমান, এসব অপকর্ম চালাচ্ছে। সুষ্ঠ তদন্ত করে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করার জন্য প্রশাসনের প্রতি দাবী করেন।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে