ঢাকায় আরেক সাংবাদিকের বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা

0
58

ইউটিউব চ্যানেলে রাষ্ট্রের ‘গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিদের’ বিরুদ্ধে অপপ্রচার চালানো ও আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতির চেষ্টার অভিযোগ এনে এক সাংবাদিকের বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা হয়েছে।

মাহবুব আলম লাভলু নামে এই সাংবাদিক ইউটিউব চ্যানেল ‘শুদ্ধ সত্য’ চালান। ক্রাইম রিপোর্টার্স এসোসিয়েশনের সাবেক সাধারণ সম্পাদক লাভলু এর আগে দৈনিক জনকণ্ঠ, সমকাল, মানবজমিন, যায় যায় দিন, বৈশাখী টেলিভিশন ও ইন্ডিপেনডেন্ট টেলিভিশনে কাজ করেছেন।

আশিকুর রহমান নামে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সাবেক একজন নেতা গত বৃহস্পতিবার চকবাজার থানায় তার বিরুদ্ধে এই মামলা করেন। আশিক বর্তমানে তিতুমীর কলেজে উদ্ভিদ বিজ্ঞান বিভাগের স্নাতকের শেষ বর্ষের ছাত্র।

চকবাজার থানার ওসি মওদুত হাওলাদার শনিবার বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে জানান, এই মামলায় লাভলু ছাড়া অজ্ঞাত পরিচয় কয়েকজনকে আসামি করা হয়েছে। লাভলুকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।

সম্প্রতি তার ইউটিউব চ্যানেলে সম্প্রচারিত প্রতিবেদনে যুবলীগ নেত্রী শামীমা নূর পাপিয়ার ‘অপকর্মে’ জড়িত অভিযোগে অনেকের নাম আসে। এর পাশাপাশি আরও কয়েকটি বিষয় নিয়ে সম্প্রচারিত প্রতিবেদনে গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিদের কথা বলা হয়।

পাপিয়াকাণ্ডে প্রকাশিত প্রতিবেদনের জন্য এর আগে মানবজমিনের সম্পাদক ও এক সাংবাদিকের বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা করেছেন একজন সংসদ সদস্য।

লাভলুর বিরুদ্ধে মামলার বাদী আশিক বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, “পাপিয়াকাণ্ড ছাড়াও এই ইউটিউব চ্যানেলে বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে মিথ্যা তথ্য দিয়ে কনটেন্ট তৈরি করে প্রচার চালিয়ে আসছে।

“এসবের মূল উদ্দেশ্য আইন-শৃংখলার অবনতি, বিভিন্ন সম্প্রদায় ও শ্রেণির মধ্যে শত্রুতা, বিদ্বেষ ও ঘৃণা সৃষ্টি করা এবং সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিনষ্ট, অস্থিরতা ও বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করা। এছাড়া সরকারের উন্নয়নকে বাধাগ্রস্ত করাও তার অন্যতম উদ্দেশ্য।

এসব দেখে দেশের সচেতন নাগরিক হিসেবে ‘বিবেকের তাড়নায় স্বপ্রণোদিত হয়ে’ এই মামলা করেছেন বলে জানান পুরান ঢাকার চকবাজারের বাসিন্দা আশিক।

এ বিষয়ে বক্তব্যের জন্য লাভলুকে ফোন করে পাওয়া যায়নি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here